Home / প্রতিটি অনুষ্টানের সংবাদ / রঙ্গিলা এবং অন্যান্য

রঙ্গিলা এবং অন্যান্য

রঙ্গিলা এবং  অন্যান্য:আলোচক হারাধন বৈরাগী

অনুমান নির্ভর কৃত্তিমতার মোড়কে কাহিনী বর্ণনা নয় এক্সপেরিমেন্টের নামে অকারণে চেঁচামেচি বা সোরগোল নয়।বাস্তব জীবনবোধের  নিঁখুত গল্প লিখেছেন ত্রিপুরার দেওপাড়ের প্রতিশ্রুতিবান কবি ও গল্পকার পদ্মশ্রী মজুমদার ।চরিত্র চিত্রণে সহজ সরল ভাষা প্রয়োগ ও পরিমিতিবোধ লেখিকাকে আমাদের আলাদা করে চিনিয়ে দেয়।এই গল্প সঙ্কলনের রঙ্গিলা গল্পে পশুর মাঝে মানবতা বোধের উচ্চার এবং মানুষের মাঝে তার অনুপস্থিতি গল্পকারের মুন্সিয়ানা আমাদের বিশেষ ভাবে ভাবায়।
পড়ুন ও পড়ান কবি পদ্মশ্রী মজুমদারের ভিন্ন স্বাদের গল্প সংকলন-“রঙ্গিলা ও অন্যান্য গল্প “।
প্রচ্ছদ-পল্লব ভট্টাচার্য ।কথামুখ-হরিভূষণ পাল।

                                   স্রোত প্রকাশনা
হালাইমুড়া, কুমারঘাট 799264,
ঊনকোটি ত্রিপুরা
মোবাইল –9436167231
ইমেইল-srot gobinda@rediffmail. com

শ্রেষ্ট কবিতা:মিলনকান্তি দত্ত
স্রোত প্রকাশনা
প্রকাশ কাল:২০১৬
মূল্য:২০০/
ISBN:978_93_80904_60_3

  কবিতা যদি মগ্ন চৈতন্যের সরূপ হয় তবে পড়ূন উত্তর  ত্রিপুরার সন্ত কবি মিলনকান্তি দত্তের শ্রেষ্ঠ কবিতা ।আমি বলি কবিতার রাজা।
এই কাব্যগ্রন্থের একটি অনুকবিতা রেণু-

” গুরূপত্নী গমনের পর আর
কোন গমন থাকে না।

                   তবু বাল্যসখি, তুই
যেনে গেলি রূঢ়
স্খলনের দাগ!

প্রকাশক——স্রোত প্রকাশনা
হালাইমুড়া,কুমারঘাট ঊনকোটি ত্রিপুরা
মোবাইল-9436167231, মূল্য,200টাকা
email:srot  gobinda@rediffmail. com
ISBN:978-93-80904-60-3
—————

দেও
***
কবি পদ্মশ্রী মজুমদারের কাব্যগ্রন্থ।
প্রচ্ছদ ও অলঙ্করণ ত্রিপুরার সন্তকবিমহারাজ মিলনকান্তি দত্ত ।
স্রোত প্রকাশনা হালাইমুড়া কুমারঘাট ঊনকোটি ত্রিপুরা।পিন-799264 মোঃ9436167231
email:srot gobinda@rediffmail. com, baibari 15@gmail. com/Rs. 100.00
একটি জীবনমুখী কাব্যগ্রন্থ।
___________________________
কবি পদ্মশ্রী মজুমদার এই সময়ের ত্রিপুরার সাহিত্য আকাশের এক উজ্জ্বলতম নক্ষত্র।তিনি শুধু কবি নন।কবিতা ও গল্পে সমান পদচারণা ।ইংরেজী ও বাংলা উভয় ভাষায় সমান দক্ষ ।এই প্রতিস্রুতিবান কবি ত্রিকালদর্শী ত্রিপুরার পুন্যতোয়া দেওনদীর উপর আবাল্য আশৈশব আযৌবন সখ্যতার কিংবা সহবাসের সখ্যতা থেকে উঠে আসা ক্ষারপানিই যেন তাঁর এই কাব্যগ্রন্থের নিখাদ উচ্চার।কবি মিলন কান্তির কথায় ‘—নারী ও রমনী, জায়া ও জননী খণ্ড গৃহস্থালি ও কবিতার অখণ্ড চিরপদার্থ যেন আলাদা করা যায় না।পদ্মশ্রীর সত্যার্থী উচ্ছারণে,’তোমার বুকে এত জল! গহীন জলে নাওকে তবু ভাসতে দিলে কই? ‘তবু’এই শব্দবেদ প্রস্থানের মহাপথে পাঠককে ভাসিয়ে নিয়ে যেতে চায়।’
-আমি এই কাব্যগ্রন্থে অনুভব করেছি নদীর সঙ্গে কবির অন্তরাত্মার অভেদ্য সহবাস।যা থেকে কবিকে আলাদা করা যায় না।আলাদা করা যায় না শ্রীহট্টীয় মানুষের জীবনবেদ থেকে নদীর কান্নার লবন অস্রুর।
দেওনদী /দেরগাঙ জম্পুই পাহাড় থেকে উৎপন্ন হয়ে আনন্দবাজার দশদা কাঞ্চনপুর দুমুইখ্যাআদাম মাছমারা উকলছড়া পেঁচারতল হয়ে সিদংছড়ায় শাখান ভেদ করে কুমারঘাটের হালাইমুড়ায় গিয়ে মনুর সাথে সঙ্গম রচনা করেছে।এই নদীর সাথে জড়িয়ে আছে কত কথা। 1709-1715 খৃঃ উত্তর ত্রিপুরার লালজুরীর কোন এক স্হান থেকে এই নদীর নাব্যতা ধরেই তিনবার এসেছিলেন বাঁশের ভেলা করে আসামের মহারাজ রূদ্রসিংহের দুই রাজদূত ত্রিপুরার উদয়পুরে।বর্তমান হালাইমুড়ায় কবি পদ্মশ্রীর কবিতাঘর বাসভবনের পাশ দিয়ে ।এমন নদী দেও কবির মগ্নচৈতন্যে ধরা পড়েছে ভিন্ন জীবন গাঁথামুখ নিয়ে পাঠকের কাছে।
আশৈশব আযৌবন দেওপাড়ে বেড়ে ওঠা কবি

পদ্মশ্রী তাই বলতে পারেন শুদ্ধ উচ্চারে-দেও আমাকে শিখিয়েছে শরীর জুড়ে বন্যা আসা/দেওনদী আমাকে দেয় সময়ের প্রথম পাঠ, জল/আমার এলোচুলে জল, বুকে জল, গর্ভে ক্রমাগত জলের ঢেউ নিয়ে এখন আমি বর্ষার ভরাল দেও/—তিনদিন ধরে জলের মেশিন খারাপ তৃষ্ণা নেই জীবনের কাছে/—-জানতো সবচেয়ে ভালবাসি ঘুমোতে/দেও নদীকে বলি ঘুম পাড়িয়ে দাও /——–কোল ভরে দিয়েছে দেওনদী /তাই আছি পাশাপাশি সমান্তরাল /–যে মাছটি গিলে খেয়েছিল পরিচয়ের আঙটি/তার বুকে বারবার জল ফেলেও/ তাকে ধরা যায়নি/—-বছর ঘুরতেই আবার গর্ভবতী মায়া/অনিলের স্ত্রী ছেলে কোলে লাকড়ি ধরে দেও নদীর বন্যায়/—আজ বারূনী/চাল খই কলা বাতাসা হাঁসের ডিম ধূপ আর উলুধ্বণিতে দেও আজ গঙ্গা/আজ দীপাবলি —-পথ দেখবেন চৌদ্দপুরূষ/—আজ আশ্বিনের সংক্রান্তি/শ্রীহট্টীয় ভাষায় আট আনাজের সংক্রান্তি—-ধান আর সবজি ক্ষেতে —বসুন্ধরা আজ গর্ভবতী/—দেও নদীর তীর ধরে হাঁটলে কাঞ্চনপুর নাকি যাওয়া যায় /–দেও নদী শুধু জানে কতটুকু অন্ধকারে জল কোনদিকে কতটুকু গড়ায়/দেও নদী জানে–কতটুকু অন্ধকারে জন্ম নেয় ডহর/–দেওনদী তিরতির মিশে যায় মনুতে আমরণ/–বড় সুখে আমার স্নায়ু বয়ে যাচ্ছে অবচেতনার দিকে /তুই দেওনদী আমার ইতিরেখা/
সত্যি পদ্মশ্রী ইতি চান একদিন দেওনদীর কোলে———–।সুখপাঠ্য অসাধারণ এই কাব্যগ্রন্থ।আমার তাই মনে হয়েছে।পড়ুন ও পড়ান।শুভেচ্ছা কবিকে।
============%=%%%%%

দ্রোহবীজ পুঁতে রাখি, একা

আলোচক়:হারাধন বৈরাগী

ত্রিপুরার তরূণ কবি গোবিন্দ ধরের আত্মখননের তর্জনী নির্দেশিত কাব্যগ্রন্থ।বলা দরকার, কবি গোবিন্দ ধর শুধু কবি নন, একাধারে স্রোত পুস্তক প্রকাশনা, সাময়িকী সম্পাদনা লিটল ম্যাগ আন্দোলন সহ বিচিত্রবিধ সাহিত্যবিষয়ক কর্মকাণ্ডের সাথে জড়িত অতি জীবিত এক দ্রোহবীজ।যা তাঁর এই কাব্যগ্রন্থে স্বখোদিত ভাস্কর্যের মতো প্রস্ফুটিত।এই কাব্যগ্রন্থ পাঠের সাথে সাথে পাঠক স্বখননের সলিলে ডুবে যাবেন নিজেরই অজান্তে এ আমার গভীর বিশ্বাস ।এই কাব্যগ্রন্থে কবি যেন এক সুদক্ষ শৈল্যবিদের মতো নিজের জীবনকে নিজেই কাঁটাছেড়া করতে করতে বিশুদ্ধ উচ্চারে ছড়িয়ে দিচ্ছেন জীবনবেদ।আর পাঠক সেই বেদবীজে খুঁজে পাচ্ছেন যেন নিজেরই দ্রোহবীজ।এখানেই কাব্যগ্রন্থটির স্বার্থকথা যা আমার কাছে প্রতীয়মান হয়েছে ।

যখন কবি বলেন,-” পথের এত কাঁটা /চক্র, চক্রব্যুহ, খানাখন্দ মানুষ পার হতে পারে না/
এই চক্রে ঘুরপাক খায়/একটি লাটিম/

জলে থেকেও জল পিপাসায় জলের গভীরে ডুব দেই/ শুধু খাঁচা /খাঁচার দিকে এগিয়ে গেলে খোঁয়াড়ে প্রবেশ/এই স্বৈরিনীমুখ—/
তৃষ্ণা মেটেনি/বেলা মাসির পেন্টিতে সময়ের দাগ/এই পৃথিবীতে তুমুল তুফান/
আমি তুমি সবাই শিকার—–।কিংবা বুকে তোমার অনেক কবুতর ছিল /অথবা  “তবু, সোনাগাছির বিপিএল ছলনা—-/
ভাঙচুর হওয়ার মতো যথেষ্ট /কিছুই নেই অবশিষ্ট /অথচ প্রতিবার ভাঙছি/
কিংবা আঁকাবাঁকা হাটি বুকে ভর দিয়ে /
মানুষ অথবা মানুষ নয় অন্য কেউ? /ভেতরে ভেতরে বাস্তুম্যাপ, কামড়ায় মন, মেধা, সংস্কৃতি/
কবির কাছে জীবন গিরগিটির মতো রঙ বদলায়।তাই তিনি রঙ বদলাতে বদলাতে বর্ণান্ধ।
এই একটি মাত্র শরীর/যার সাথে আত্মা আমার ডানার মতো লেপটে আছে/ কিংবা বারবার সরল রেখা আঁকতে /বিন্দু দিয়েছি/দুটি বিন্দু আর ঠিকঠাক মিলেনি/
কবি বলেন -জল ভেবে বহুদূর অব্দি এসেছি/—ফেরা কি সহজ? /কেউ ফিরতে পারে না/
কবির উচ্চার -শরীর তৃপ্তি হোটেল নয়—-/
আবার বলেন-সর্বংসহা এই মাটি/—মাটিতেই বীজ জাগে/মাটিতেই বেড়ে ওঠে/মাটিতেই খাবি আর হোঁচট/মাটিতেই আমিত্ব শেষ /
টপকাতে চেয়েছি বারবার/আল টপকাতে পারিনি বলে আমি জমিন/
কবির বিশ্বাস—শুভরেখা তুমি আলোতে থেকো/————ভেতরে ভেতরে নিক্কণের শব্দ বাজে/বাইরে আমি একা/সমস্ত দ্রোহবীজ পুঁতে রাখি একা, একা।

পাঠ করার মতো কাব্যগ্রন্থ
__________________
“দ্রোহবীজ পুঁতে রাখি একা”(মোট 71টি কবিতা, 97পৃষ্ঠা )
*********************
– গোবিন্দ ধর
    স্রোত প্রকাশনা
হালাইমুড়া, কুমারঘাট, 799264
ঊনকোটি ত্রিপুরা
ইমেইল srot-gobinda@rediffmail. com
মূল্য-একশ টাকা
মোবাইল –09436167231

==========%%=%=%%%%%%%%%%%

রঙ্গিলা এবং  অন্যান্য:আলোচক হারাধন বৈরাগী অনুমান নির্ভর কৃত্তিমতার মোড়কে কাহিনী বর্ণনা নয় এক্সপেরিমেন্টের নামে অকারণে চেঁচামেচি বা সোরগোল নয়।বাস্তব জীবনবোধের  নিঁখুত গল্প লিখেছেন ত্রিপুরার দেওপাড়ের প্রতিশ্রুতিবান কবি ও গল্পকার পদ্মশ্রী মজুমদার ।চরিত্র চিত্রণে সহজ সরল ভাষা প্রয়োগ ও পরিমিতিবোধ লেখিকাকে আমাদের আলাদা করে চিনিয়ে দেয়।এই গল্প সঙ্কলনের রঙ্গিলা গল্পে পশুর মাঝে মানবতা বোধের উচ্চার এবং মানুষের মাঝে তার অনুপস্থিতি গল্পকারের মুন্সিয়ানা আমাদের বিশেষ ভাবে ভাবায়। পড়ুন ও পড়ান কবি পদ্মশ্রী মজুমদারের ভিন্ন স্বাদের গল্প সংকলন-"রঙ্গিলা ও অন্যান্য গল্প "। প্রচ্ছদ-পল্লব ভট্টাচার্য ।কথামুখ-হরিভূষণ পাল।                                    স্রোত প্রকাশনা হালাইমুড়া, কুমারঘাট 799264, ঊনকোটি ত্রিপুরা মোবাইল -9436167231 ইমেইল-srot gobinda@rediffmail. com শ্রেষ্ট কবিতা:মিলনকান্তি দত্ত স্রোত…

THE BREAKDOWN

DESIGN
DISPLAY
RECEPTION / CALL QUALITY
PERFORMANCE
SOFTWARE
BATTERY LIFE
ECOSYSTEM

Nice

Look, I can take you as far as Anchorhead. You can get a transport there to Mos Eisley or wherever you're going.

Buy it now
User Rating: 4.18 ( 9 votes)

About tripura

One comment

  1. Comment Test

    I care. So, what do you think of her, Han? Don’t underestimate the Force. I don’t know what you’re talking about. I am a member of the Imperial Senate on a diplomatic mission.

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Powered by themekiller.com